বাংলাদেশে ইতিমধ্যে সীমিত আকারে কমিউনিটি ট্রান্সমিশনে করোনা সংক্রমিত হচ্ছে এমনটা আগেই জানিয়েছিল আইইডিসিআর । এবার সেই কথারই যেন সত্যতা দেখা শুরু করেছে দেশবাসী। গতকাল রাতে এক নারীর মৃত্যুর পর এবার সেই নারায়নগঞ্জে আরো এক ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেল করোনার কারনে।


সদর উপজেলার ৫৫ বছর বয়সী এ ব্যক্তির মৃত্যুর খবর পেয়ে শনিবার রাত ১টার দিকে কাশিপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বাংলাবাজার বড় আমবাগান (সুচিন্তাপুর) লকডাউন করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

শনিবার সকালে রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ জেলায় দুইজনের মৃত্যু হল।



এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক বলেন, "ওই এলাকা ডকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। লকডাউন এলাকায় ৩শ’ বাড়ি রয়েছে। এ এলাকা থেকে কেউ বের হতে পারবে না, কেউ আসতেও পারবে না। তারা পুলিশ পাহারায় থাকবে।"

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, "করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দুইজনের মৃত্যু হল।"


নিহত ব্যক্তি নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কাশীপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সুচিন্তানগর এলাকার বাসিন্দা।

আবু সাঈদ ৭১-এর চেতনা মঞ্চ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদি হাসান রবিনের বাবা।

রবিন জানান, গত দুই দিন ধরে তার বাবার শ্বাসকষ্ট ও কাশি ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে শনিবার সকাল ৯টায় মারা যান৷ পরে আইইডিসিআর থেকে লােকজন এসে পরীক্ষা করে করােনার কথা জানায়৷

লাশ আইইডিসিআরের লােকজনের তত্ত্বাবধানে ঢাকার খিলগাওয়ে দাফন করা হয়।


এ বিষয়ে জেলা করোনাভাইরাস বিষয়ক ফোকাল পারসন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম জানান, গত বৃহস্পতিবার জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে কাশিপুর এলাকার বাসিন্দা ব্যবসায়ী ওই ব্যক্তিকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন স্বজনরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

"আইইডিসিআর-এ পরীক্ষায় মৃত ওই রোগীর করোনাভাইরাস পজেটিভ রিপোর্ট আসে। পরে দুপুরে আইইডিসিআর এ তত্ত্বাবধানে রাজধানীর খিলগাঁও কবরস্থানে ওই ব্যক্তির লাশ দাফন করা হয়েছে।"

আরো পড়ুন

Error: No articles to display