রাত বেড়ে যাওয়ার সাথে সাথে পুরাতন ঢাকার রাস্তা এবং সড়কগুলো শুরু হয় ফাঁকা হতে। এ দিকে কমতে শুরু করে ভিড়। কোলাহল কমে গিয়ে অনেকটা শান্ত হতে থাকে সকল এলাকা। কিন্তু চকবাজারের মদিনা আশিক টাওয়ারে দৃশ্যপট, সেখানে রাত গভীর হওয়ার সাথে সাথে আসর শুরু হতো, রাত ১১টা হতেই পদচারনায় মূখর হতো প্রভাবশালীদের। একের পর এক সেখানে আসতে শুরু করতো বিলাসবহুল গাড়ি। ব্যবসায়ী থেকে শরু করে তরুণ নতুন এবং সিনিয়র রাজনীতিবিদদের মিলিত হবার স্থান ছিল ওই ভবনে। টাওয়ারের এই আড্ডাখানায় শুধু পুরুষ রাজনৈতিকেরা আসতেন না সেখানে অংশ নিতে আসতেন বিভিন্ন বয়সী নারীরা। হৈ-হুল্লোড়, উচ্চ শব্দে গান-বাজনা, বিভিন্ন ধরনের আতশবাজির শব্দে অনেকটা উৎসব উৎসব ভাব বিরাজ করতো রাতভর।
শোনা যেতো গু’/লির শব্দও। নাচে, গানে আসরে অংশগ্রহণকারীরা বুঁদ হয়ে থাকতেন মা’/দকে। ভোর পর্যন্ত চকবাজারের ওই এলাকা মাতিয়ে রাখতো মদিনা আশিক টাওয়ারের আসর। এই আসরের মধ্যমণি ইরফান সেলিম। সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের পুত্র ইরফান সেলিম ও তার ঘনিষ্ঠদের খুশি করতে সব ধরনের আয়োজন করতেন তার দেহর’ক্ষীরা। হাজী সেলিমের ছোট ছেলে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী আশিক সেলিমের নামে এই টাওয়ার। ইরফানের ’চাঁন সওদাগর দাদাবাড়ি’র গলি থেকে বের হয়ে একটু সামনে গেলেই চোখে পড়ে বহুতল মদিনা আশিক টাওয়ার।

আশপাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আতশবাজি ও শটগানের গু’/লির শব্দে ঘুম হতো না অনেকের। কিন্তু আত’/ঙ্কে প্রতিবাদ করার সাহস নেই কারও। এমনকি এখনও এ বিষয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে চান না কেউ। ইরফান টাওয়ারে যাবেন। সেখানে পা রাখার আগেই পুরো এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিতো ইরফানের দেহরক্ষীরা। দেহরক্ষীসহ প্রায় ৪০ জন তার সেবায় নিয়োজিত ছিল। ইরফান সেলিম আসার পরপরই শুরু হতো আসর। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ওই টাওয়ারের ১৬ তলায় হাজী সেলিমের মালিকানাধীন মদিনা ডেভেলপারের অফিস। রয়েছে আরো কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিস। ১৭ তলাবিশিষ্ট এই ভবনের উপরের তলায় ইরফান সেলিমের কার্যালয়। এখানেই রাতভর আড্ডা দিতো ইরফান ও তার সঙ্গীরা। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এই কক্ষের দুই পাশে বসার জন্য রাখা হয়েছে সোফা। রয়েছে একটি টেবিল ও চেয়ার। মাঝখানে ফাঁকা জায়গা। এটি ড্যান্স ফ্লোর। রাতভর দুই পাশে বসে ইরফান ও তার সঙ্গীরা নাচ উপভোগ করতো। হিন্দি ও পপ গানের সঙ্গে নাচ চলতো ম’/দপা’ন। আসরের অনেকেই আ’স/’ক্ত ছিলেন ই’/য়া’বায়।

রাতে এখানে রঙ্গলীলা ঘটলেও দিনের বেলা ছিল ভিন্ন। দিনে এখানে ঘটতো নি’/র্যা’তনের ঘটনা। ইরফানের কথার অবা’/ধ্য হলেই ধরে আনা হতো লোকজনকে। কা’ন্নাকা’টি করে, মাফ চেয়েও রে’হাই পেতো না তারা। চাঁদা না দিলে ধরে এনে নি/’র্যা’তন করা হতো। এমনকি জমি দ’/খলে বা’ধা দিলেও কপালে জুটতো করুণ পরি’ণতি। মুখে স্কচটেপ দিয়ে, হাত-পা বেঁ’/ধে বে’/দম পি’/টানো হতো। প্রায়ই হাত ধরে টে’নে-হিঁ’চড়ে বিভিন্ন জনকে টাওয়ারের ভেতরে নিয়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখেছেন অনেকে। ওই টাওয়ারের নিরা’পত্তা ছিল ক’/ঠোর। নাইট ভিশন বাইনোকুলার, ওয়াকিটকি, ফ্রিকোয়েন্সি ডিভাইস ব্যবহার করতো ইরফান সেলিমের নিরাপ’/ত্তাকর্মীরা। ইরফান সেলিমকে গ্রে’/প্তা’রের পর সোমবার ওই টাওয়ার থেকে কয়েক ধরনের দড়ি, হাতু’ড়ি, র’ড, হা’’ড়, হ্যা’ন্ডকা’ফ, বেশ কয়েকটি গা’মছা, ধারা’/লো অ’/স্ত্র, মোটা বেতের লা’/ঠি, হকিস্টি’/ক, স্যাভলন ভর্তি বোতল, গ্যাসলাই’টার, ফয়েল পেপার, একটি মোটা জিআই পাইপ, দু’টি স্কি’/ন স্কচটেপ, ট্রাইপডসহ নেটওয়ার্কিংয়ের কাজে ব্যবহৃত ওয়াকিটকিসহ উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ফ্রিকোয়েন্সি ডিভাইস জ’/ব্দ করেছে র‌্যাব।

সাংসদ হাজী সেলিম তনায়া ইরফান সেলিম ঢাকা দক্ষিণ সিটির একজন প্রভাবশালী কাউন্সিলর। সবদিক থেকে তিনি ষোলো আনা কাউন্সিলর, কেনণা, তিনি একাধারে এমপিপুত্র, অপরদিকে নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করীম চৌধুরীর মেয়ে জামাতা। তাছাড়া বিভিন্ন ধরনের বড় বড় ব্যবসা রয়েছে ইরফানের পরিবারের যার মধ্যে সিমেন্ট, জাহাজ অন্যতম। ক্ষমতা এবং বিপুল পরিমান অর্থ-সম্পত্তির কারণে অনেকটা বেপ’/রোয়া ইরফান সেলিম। লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ যিনি র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক হিসেবে রয়েছেন, তিনি জানান, মদিনা আশিক টাওয়ার শুধু তাদের আড্ডাখানা ছিল না সেটাকে ব্যবহার করা হয় ট’র্চার সেল হিসেবেও। এই ভবনে ঘটতো বিভিন্ন ধরনের অপ’/কর্ম। বেশকিছু আ’লামত সেখানে পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
খবর মানবজমিনের।

আরো পড়ুন

পাল্টে যেতে শুরু করেছে আমার শরীর: মোনালী ঠাকুর

27 November, 2020 | Hits:380

ভারতের সংগীত জগতে একটি জনপ্রিয় নাম মোনালি ঠাকুর। তিনি তার জীবনে কিছুটা পরিবর্তন আনার জন্য চেষ্টা করছেন। তাই তিনি শুরুটা...

ফিলিস্তিন বিষয়ে হোয়াইট হাউসে নতুন ইতিহাস গড়লেন জো বাইডেন

27 November, 2020 | Hits:223

কিছুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন শেষ হলো। আর এই নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন জো বাইডেন। আমেরিকার প্রশ...

আলী যাকের হাসপাতালে ভর্তির পর যেরোগ শনাক্ত হলো

27 November, 2020 | Hits:222

বাংলাদেশের নাট্যজগতের বরেণ্য অভিনেতা এবং স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সেনা এবং বীর মুক্তিযো’/দ্ধা আলী যাকের করোনায় সংক্রম...

বাড়িওয়ালাদের মিলছে না কোনো ভাড়াটিয়া

27 November, 2020 | Hits:214

ইউসুফ তুহিনের পরিবার মিরপুর কালশি রোডে, তার সংসার চলে বাড়ি ভাড়া দিয়ে। করোনার শুরুতে, তিনি ভাড়া অর্ধেক করে রেখেছিলেন। ...

রাতে মেডিকেল ছাত্রীদের ঢুকে গ'র্হিত কাজ করতো স্বাধীন, টয়লেটে গোপন ক্যামেরাও বসিয়েছিল

29 November, 2020 | Hits:179

রাজশাহী জেলায় অবস্থিত শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের যিনি ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে রয়েছেন তার নাম স্বাধীন। এবার এই ...

এবার সিঙ্গাপুরে খোঁজ মিলেছে সাকা চৌধুরীর বিপুল পরিমান অর্থের

27 November, 2020 | Hits:171

মানবতাবি’রো’/ধী অ’পরা’/ধে যুক্ত হওয়ার দায়ে মৃ’/ত্যুদ’ণ্ড কার্যকর হওয়া যু’/দ্ধ অপ’রা’/ধি সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরী...

আমার সঙ্গে এভাবে কথা বলবেন না, আমি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট: ট্রাম্প

27 November, 2020 | Hits:166

কিছুদিন আগে শেষ হলো আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার...

সন্ধান মিলছে না ব্যাংকে রাখা ৮ হাজার কোটি টাকার মালিকের

29 November, 2020 | Hits:146

সিঙ্গাপুরে একজন বাংলাদেশী নাগরিকের নামে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থের খোঁজ মিলেছে। বাংলাদেশী মুদ্রার ভিত্তিতে এই...

হোয়াইট হাউজ ছেড়ে যাব, তবে সামনে অনেক কিছু দেখতে পারবেন: ট্রাম্প

27 November, 2020 | Hits:129

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছেন যে, জো বাইডেন যদি আমেরিকা নির্বাচনে প্রকৃতই জিতে থাকে তাহলে, যে কোনও মুহুর্তেই ...