ঢাকা: রাজধানীবাসীর বিনোদনের অন্যতম স্থান হাতিরঝিল; কিন্তু বেপরোয়া গতিতে বাইক চালাতে গিয়ে হরহামেশাই ঘটছে নিত্য দুর্ঘটনা। প্রায়ই প্রতিদিনই আসছে দুর্ঘটনার খবর। গত পরশু দিনও অর্থাৎ ০১ মে হাতিরঝিলে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুই আরোহীর মৃত্যু হয়েছে।
শুক্রবার (০৪ মে) বিকেলেও বেপরোয়া বাইক চালাচ্ছিলেন তিন কিশোর। দ্রুত গতিতে হেলে দুলে রাস্তায় মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় কাউকেই যেনো পরোয়া করছেন না তারা! এ সময় কারও মাথায় ছিল না হেলমেটও।
হৈ-হুল্লোড়ের পাশাপাশি বাইক নিয়ে ওই তিন কিশোর সড়কে বেপরোয়া গতিতে চলার সময় নানারকম ভেলকিবাজিও করছিলেন!
ওই বাইকের পেছনেই ছিল পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের গাড়ি। বাইকারের ঝুঁকিপূর্ণ গতি দেখে তিনি তাদের থামান। পরে তাদের আটকান তিনি। পরে পুলিশকে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলেন প্রতিমন্ত্রী। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ফেসবুকের টাইমলাইনে নিজেই বাইকারদের কাণ্ড-কীর্তির ভিডিওসহ পোস্ট করেন শাহরিয়ার আলম।
ফেসবুক টাইমলাইনে প্রতিমন্ত্রী লিখেছেন, ’হাতিরঝিলে তিনবারের চেষ্টায় থামালাম। ভিডিওটা লাউড স্পিকারে আমি কথা বলার পরে। তিনজনই কিশোর, ভয়ানক গতিতে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালাচ্ছিল। একজন কোনো এক গ্যারেজে কাজ করে।’
’হাতিরঝিলকে এমনিতেই অনেকে নিজের বাড়ির উঠোনের মতো ব্যবহার করে। বাচ্চাগুলো আমার কাছে মাফ চাইলো। বললাম, বাসায় গিয়ে মা-বাবার কাছে মাফ চাও, নিথর (অবশ্যই অন্য শব্দ ব্যবহার করেছি) দেহে ফিরলে তাদের কি হবে, ভেবেছো কখনও ? Unfinished job।’