কোভিড-১৯ বর্তমান সময়ের এক মহামারীর নাম যা ফুসফুস এবং রেসপিরেটরি সিস্টেমগুলিকে ক্ষতি করতে পারে। এই রোগটি করোনার ভাইরাস নামে একটি ভাইরাস দ্বারা ঘটে। ডিসেম্বর ২০১৯ এ প্রথম এই রোগটি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রকাশিত হয়েছিল।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

এই ভাইরাসে সংক্রমণের সাধারণ লক্ষণগুলির মধ্যে শ্বাসকষ্টের স’/মস্যা, জ্বর, কাশি এবং শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গ রয়েছে। উচ্চ মাত্রার সংক্রমণ নিউমোনিয়া, গু’/রু’তর সিন্ড্রোম, কিডনি ফেইলিওর এবং এমনকি মৃ’/ত্যুর কারণ হতে পারে।

বর্তমানে শুধু জ্বর, সর্দি-কাশির মধ্যে করোনার উপসর্গ সীমাবদ্ধ নেই। এখন র’/ক্তচাপের অস্বাভাবিক ওঠানামা, অবসাদ, পেটে সম’/স্যাসহ আরও বেশকিছু উপ’সর্গ যোগ হয়েছে।

চিকিৎসকরা বলছেন, উপসর্গের এই পরিবর্তন গেলো মাস দুয়েক ধরে দেখছেন তারা। অবশ্য এই পরিবর্তন যে করোনাভাইরাসের মিউটেশনের জন্যে হচ্ছে এমনটা মনে করেন না বিজ্ঞানীরা।

অনেক রোগীরই জ্বর-কাশি নেই; কিন্তু অবসাদ-ক্লান্তি, র’/ক্তচাপের অস্বাভাবিক ওঠা-নামা, পেটে সম’/স্যা এমনকি কিডনি জ’/টিলতা নিয়ে যাচ্ছেন, চিকিৎসকদের কাছে। পরে টেস্টে মিলছে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি। এই বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ বলছেন, কারণ না জানা গেলেও; করোনার উপসর্গ যে বদলাচ্ছে এতে কোন স’/ন্দেহ নেই।

শুধু বাংলাদেশেই নয়- যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যেও সরাচরের বাইরে কোভিডের ভিন্ন উপসর্গ পেয়েছেন চিকিৎসকরা। সেখানে মাথা ব্যথা, র‍্যাশ ওঠা, লাল চোখ অনেকের আবার শ্রবণশক্তিও কমেছে।

এই ভাইরাসে সংক্রমনিত হওয়ার পর বিবিন্ন দেশের আ’/ক্রা’ন্ত ব্যক্তিদের মাঝে দেখা গিয়েছে নানা ধরনের উপসর্গ যেটা কিছু সাধারন উপসর্গ থেকে ভিন্ন। আবার কেউ কেউ এই রোগে সংক্রমিত হওয়ার পরও তাদের কোনো রোগ লক্ষন দেখা দেয়নি এক কথায় উপসর্গহীন। তবে চিকিৎসকেরা এই ভাইরাসে সংক্রমনের পর যে সকল লক্ষন দেখা দেয় তা নিয়ে চলছে পর্যবেক্ষন এবং সেই সাথে গবেষনা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display