ভারতের জনপ্রিয় নেতা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাথে সাক্ষাৎ করা তার জীবনের একমাত্র বড় স্বপ্ন। তিনি গেল ৪ বছর যাবৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মোদীকে অনুসরণ করছেন। এমনকি, ঐ যুবক নিজেকে নরেন্দ্র মোদির সবচেয়ে বড় একজন ’ভক্ত’ হিসেবে দা’বি করেন। এই কারণেই, ২৮ বছর বয়সী কাশ্মীরি যুবক, ফাহিম নাজির শাহ নরেন্দ্র মোদীর সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য শ্রীনগর হতে দিল্লি পর্যন্ত ৮১৫ কিমি হাঁটতে যাচ্ছেন।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

তিনি ইতিমধ্যে ২০০ কিলোমিটারেরও বেশি পথ পাড়ি দিয়েছেন। তিনি রবিবার উপধামপুর পৌঁছান। আপাতত, তিনি সেখানে দুই দিন বিশ্রাম নেবেন।

তারপর আবার রওনা হবেন দিল্লির উদ্দেশ্যে। গত আড়াই বছর ধরে একাধিকবার ফাহিম দেখা করার চেষ্টা করেছেন মোদির সঙ্গে। কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছে তার প্রচেষ্টা। মোদি যখন সফরের জন্য কাশ্মীর গিয়েছিলেন তখনও তার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেছিলেন ফাহিম। কিন্তু নিরাপত্তার’ক্ষীদের বা’/ধায় সেবারেও বিফলে যায় তার সব চেষ্টা।

তবে এবারের সাক্ষাৎ নিয়ে আশাবাদী ফাহিম। "আমি প্রধানমন্ত্রী মোদির খুব বড় ফ্যান। তার সঙ্গে দেখা করতেই পায়ে হেঁটে আমি দিল্লি যাচ্ছি। আশা করছি আমার এই যাত্রা প্রধানমন্ত্রীর মনোযোগ আকর্ষণ করবে এবং উনি আমার সঙ্গে দেখা করতে রাজি হবেন। তার সঙ্গে দেখা করাই আমার একমাত্র স্বপ্ন," জানিয়েছেন ফাহিম।

ফাহিম আরও জানিয়েছেন, মোদির প্রত্যেকটি ভাষণ এবং পদক্ষেপই মন কে’/ড়ে নিয়েছে তার। ফাহিম জানিয়েছেন, "একবার তিনি (প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি) যখন ভাষণ দিচ্ছিলেন, তিনি আজান শুনে হঠাৎ করে থেমে যান। সকলে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর এই ছোট ছোট কাজও আমার হৃদয় ছুঁয়ে গিয়েছে। তখন থেকেই আমি তার ফ্যান হয়ে গিয়েছি।"

ফাহিম বলেন, তিনি মোদীর সাথে দেশের শিক্ষিত বেকার যুবকদের সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে চান। মোদীর সময়ে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যা’হারের বিষয়ে জানতে চাইলে ফাহিম উত্তর দেন, "পরিবর্তন য হয়েছে সেটা সবার চোখের সামনে আছে। নরেন্দ্র মোদি জম্মু -কাশ্মীরের প্রতি বিশেষভাবে নজর দেওয়ার পর বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড আরম্ভ হয়েছে। উপত্যকা ধীরে ধীরে উন্নয়নের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

ফাহিম আরও বলেছিলেন যে, তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাথে আলোচনা করবেন কিভাবে জম্মু ও কাশ্মীরকে আরো উন্নয়ন ঘটাতে কী ধরনের কর্মসূচি নেওয়া যেতে পারে।
খবর হিন্দুস্তান টাইমস ও জি নিউজের।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display