বাংলাদেশ উল্লয়নে এগিয়ে যাচ্ছে শুনতে ভালই লাগে, তবে আমাদের এই রাষ্ট্রটি চরম দুর্নী’তিগ্র’স্ত দেশের তকমাটা কাটাতে পারেনি এবং বিষয়টি অকার্যকর নয়। কিন্তু বর্তমান সময়ে এসে বর্ব’রতার তালিকায়ও নিজের নামটি লিখিয়ে নিল।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

বাংলাদেশে আইনের কোনো সীমা নেই, দূর্নী’তি করতে কর্মকর্তারা অনেক সময় আইন তাৎক্ষনিক মুখে মুখেও তৈরী করেন। আইনে রয়েছে নদী দখল আইন ভ’ঙ্গ। সেখানে দেখা যাচ্ছে আজ সকল নদী রয়েছে প্রভাবশালীদের দখলে, তা রয়েছে ধ্বং’সের মুখে। আইন বলছে বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে হবে, কিন্তু বাংলাদেশে বাল্যবিয়ে এবং সেই সাথে বালিকাদের মৃ’ত্যু হার পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

২০১৯ সালে পাস হলো প্রাণী কল্যাণ আইন প্রধানমন্ত্রীর আশীর্বাদক্রমে। তাই আজকে রচিত হলো কুকুর প্রাণীর উপর চ’রম বর্ব’রতা। চর’ম লা’ঞ্চনা। চর’ম অ’ন্যায়। এই ধরনের বর্বরতা রাখব কোথায়, একটু বলে দিতে পারেন

ঠিক যখন বাংলাদেশে প্রাণীর প্রতি অ’মান’বিক ও নি’ষ্ঠুর আচরণ শা’স্তিযো’গ্য অপ’রাধ বলে ঘোষণা করা হল, বলা হলো free roaming animals will be treated with compassion, তখনি সিদ্ধান্ত নিলেন ঢাকার মেয়র, শহরকে কুকুর মুক্ত করবেন! এটাই যেন মেয়র হিসাবে তার প্রধান কাজ। মশামুক্ত শহর গড়তে না পেরে এবার কুকুর মুক্ত শহর গড়বেন! দয়া করে দেখুন ভিডিওটিতে কিভাবে করছেন কাজটা।

এ কেমন দেশ? কেমন আমরা মানুষ? কারা এরা যারা দেশটাকে, এই জাতিকে বারবার পৃথিবীর বুকে এতো ছোট করছে? আমরা তাদের ভোট দিয়ে এনেছি? এরাই কি বঙ্গবন্ধুর সৈ’নিক যারা সোনার বাংলা গড়বে?

আজ মনে হচ্ছে স্বয়ং - আমাদের জাতির পিতাকেই অপ’মান করছি আমরা। এখন তার দল ক্ষমতায়। দলের যে কোন ভুল তাকে আ’ঘাত হানে। এ কথাটি কেউ কি বুঝতে পারছে না?

তারপরও ঘটে চলেছে একটির পর একটি অ’ন্যায়, আ’ঘাতের পর চলছে পুনরায় আ’ঘাত, ভুলের পর চলছে পুনরায় ভুল...? আজ যদি উনি বেঁচে থাকতেন তাহলে প্রকৃতির এই ধরনের নি’ষ্ঠুর লা’ঞ্ছনা হতে দিতেন না কোনো ভাবে। কোনো ভাবেই আমাদের জাতিকে একটি হিং’স্র উ’শৃংখল জাতি হিসেবে বিশ্বের সামনে এই পরিচয় ঘটাতে দিতেন না।

আজ নদীগুলো যেন কাঁদছে, কাদঁছে প্রকৃতি, প্রাণীরাও কাঁদছে। কাঁদছে বৃক্ষরাজি-তরুলতা। এ কী ধরনের একটো সমাজ গড়ছি আমরা সকলে মিলে? লজ্জায়-ক্ষো’ভ-ঘৃ’ণায় মাথা যেন নত হয়ে আসে।
(সোশ্যাল মিডিয়া হতে সংগৃহিত)

আরো পড়ুন

Error: No articles to display