আল্লামা মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী যিনি হেফাজতের নতুন আমীর হিসেবে পদস্থ হয়েছেন, তিনি বলেন, দেশের আলেম-ওলামাদের নানাভাবে হ’/য়’রানি করা হচ্ছে, দেশের একটি বিশেষ গোষ্ঠীর ষ’/ড়’য’/ন্ত্রের কারণে অনেক আলেম সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা নিরাপ’ত্তাহী’নতায় ভু’/গ’ছেন। অ’জ্ঞাতপরিচয়ে মধ্যরাতে তাদেরকে তাদের বাড়ি হতে তুলে নেওয়া হচ্ছে।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

সাম্প্রতিক সময়ে আলেমদের আ’/ট’/কের প্র’তিবাদে আজ (বুধবার) অর্থাৎ ২৯ সেপ্টেম্বর এক বিবৃতিতে তিনি এই ধরনের মন্তব্য করেন।

হেফাজতের আমির আল্লামা মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী তার বিবৃতিতে বলেন, সম্প্রতি কিছু আলেমকে মধ্যরাতে তাদের বাড়ি বা অন্যান্য জায়গা থেকে বিভিন্নভাবে অ’/প’হরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আমরা মনে করি, স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে এ ধরনের ঘটনা কাম্য নয়।

তিনি বলেন, কারও বি’রু/দ্ধে কোনও অভি’যোগ থাকলে তা যাচাই-বাছাই ও সুষ্ঠু তদন্ত করে তার যথাযোগ্য বিচার করার সুযোগ রয়েছে। আমরা সরকারের কাছে অনুরোধ করছি, যেন জনমনে ভ’/য়-ভী’/তি ও আ’/ত’/ঙ্ক তৈরি করে এমনভাবে কোনও আলেম বা নাগরিককে ধ’রপা’কড় না করা হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তি, তিনি যেই হন না কেন, আইন অনুযায়ী তার বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

হেফাজতের আমির বলেন, স্বাধীন গণতান্ত্রিক দেশে এসব অগণতান্ত্রিক নিয়মকে শক্ত হাতে দ’/ম’ন করা না গেলে দেশের মধ্যে বিশৃ’ঙ্খলা তৈরি হতে পারে। জনমনে ক্ষো’/ভ ও হ’তাশা সৃষ্টি হতে পারে। এর মাধ্যমে কোনও আ’ত্মগো/’পনকারী শ’/ত্রুগো’ষ্ঠী ইসলাম ও দেশের বি’রুদ্ধে সুযোগ নিতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এক বিবৃতিতে হেফাজত নেতা বলেছেন, আমরা এটা কখনও বলছি না যে, আলেম ওলামা যারা রয়েছেন তারা সবাই নির্দো’ষ বা সকল রকমের দো’/ষ এবং অভি’যোগ থেকে দূরে থাকেন। তারা দো’ষী কিংবা অ’পরা/ধীও হতে পারেন। কিন্তু, আমাদের যেটা দাবি সেটা হলো, দেশের সাধারণ নিয়ম এবং আইনের আওতায় আনার মাধ্যমে অভি’যুক্তদের বিচার করা হলে সেক্ষেত্রে জনগণ স্বস্তি পাবে।

হেফাজতের আমিরের দাবি, যথাযথ ত’দন্ত করার পর গ্রে’/ফ’/তারকৃত আলেম-ওলামাদের মুক্তি প্রদান করা।



আরো পড়ুন

Error: No articles to display