মাঝে কিছু কিছু ঘটনা মানুষের মনে প্রশ্ন জাগিয়ে থাকে। তবে তার মধ্যে কিছু কিছু ঘটনা একটু ভিন্ন ধরনের যেটা মানুষকে ভাবিয়ে তোলে। এবার তেমন ধরনের একটি ঘটনা ঘটেছে কুড়িগ্রামের একটি এলাকায়। ’এই টাকাটার পরিমান ক্ষ’তি করছি, আমাকে মাফ করে দিয়েন’। ঘরের দরজার সামনে এমন ধরনের লেখা দেখতে পায় পাঁচ বাড়ির মালিক যেটা হলুদ টুকরা কাগজে লেখার পর রেখে গেছে। বিষয়টি দেখতে পেয়ে তারা অনেকটা অবাক হয়েছেন। রাতের আঁধারে কোনো এক ব্যক্তি এই ধরনের একটি চিরকুট এবং সাথে ১০০ টাকার নোট রেখে গেছে।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী পৌর-সভার সুখাতী ভাটিয়াটারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রামের আমিনুর রহমানের ছেলে হাসানুর রহমান জানান, শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতের খাওয়া শেষে সাড়ে ৮ টায় ঘরের দরজা দিয়ে শুয়ে পড়ে। রাত ৯টার দিকে হঠাৎ মানুষের পায়ের শব্দ শুনে তিনি দরজা খুলে বের হন। পরে দেখেন কেউ একজন তার বাড়ি থেকে দ্রুত বেরিয়ে যাচ্ছেন। পিছু পিছু গিয়েও দেখা পাননি। ফিরে এসে দরজা বন্ধ করতে গিয়ে দেখেন সেখানে পড়ে আছে একটা ১০০ টাকার নোট। টাকার সঙ্গে হলুদ কাগজের একটি চিরকুট।

চিরকুটে লেখা আছে `এই টাকাটা ক্ষ’তি করেছি মাফ করে দেবেন’। পরে তিনি শুনতে পান একইভাবে একই এলাকার আবু বকরের ছেলে আব্দুল বারেকের ঘরের দরজায় ১০ টাকা, ইসমাইলের ছেলে আব্দুস সাত্তারের ঘরের দরজায় ৫০ টাকা, মৃ’/ত শমসের আলীর ছেলে সাইদুরের ঘরের দরজায় ৩০ টাকা, ছফর আলীর ছেলে মজনু মিয়ার ঘরের দরজায় ১০০ টাকা রেখে গেছে অজানা কোন ব্যক্তি।

ঘটনাটি প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে খুব অল্প সময়ে সেটা এলাকায় ছড়িয়ে যায়। পরবর্তীতে সেটা দেখাবার জন্য উৎসুক লোকজন বাড়িটিতে ভীড় করতে শুরু করে। ঘটনাটি শুধু মাত্র তামাশার কিছু নয়, এটা নিয়ে রয়েছে ভিন্ন কোনো বিষয় যেটা নিয়ে ঐ এলাকায় চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা।

রুহুল আমিন যিনি নাগেশ্বরী পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার হিসেবে করয়েছেন তিনি দেশের একটি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, যে গ্রামটিতে এই ঘটনাটি ঘটেছে সেটা আমার নির্বাচনী এলাকায় অবস্থিত। বিষয়টি নিয়ে আমি কিছুটা শুনেছি। কে বা কারা কেন এই ধরনের কাজ করেছে আমি বুঝতে পারছি না।





আরো পড়ুন

Error: No articles to display